১০ টাকার নোটের আতিয়া মসজিদ এর ইতিহাস

বাংলাদেশের প্রাচীন ঐতিহাসিক একটি মসজিদ। এই মসজিদ ষোড়শ শতাব্দীতে নির্মিত হয় ; যা দেশের একটি প্রত্নতাত্ত্বিক৷ নিদর্শন। আজ পর্যন্ত এখানে নিয়মিত নামাজ আদায় করা হয়। মসজিদটি টাঙ্গাইল জেলার দেলদুয়ার উপজেলায় অবস্থিত। বাংলাদেশ সরকারের পুরাতাত্ত্বিক বিভাগ বর্তমানে; এ স্থাপনার তত্ত্বাবধানে কাজ করছে।

এই মসজিদের নিমার্ণকাল সম্পর্কে কিছুটা অসংগতি দেখা যায়। টাঙ্গাইলে প্রাপ্ত শিলালিপি ;ও আতিয়া মসজিদ এলাকার আরবি ;ও ফারসি থেকে এ তথ্য পাওয়া যায়। জাতীয় জাদুঘরের শিলালিপিতে নিমার্ণকাল (১৬১০–১১ খ্রি.) দেওয়া আছে। তবে,কেন্দ্রীয় মসজিদের প্রবেশ পথের উপর স্থাপিত লিপিতে দেখা যায়; নিমার্ণকাল(১৬০৮–১৬০৯খ্রি.) উল্লেখ করা আছে।

অতীত কোন ইতিহাস বা ঘটনার প্রেক্ষিতে ;কোন এলাকার বা বিশেষ কিছুর নামকরণ করা হয়। আতিয়া শব্দ আরবি শব্দ আতা থেকে এসেছে যার অর্থ দানকৃত। আলি শাহান শাহ বাবা আদম কাশ্মীরী (রঃ) কে সুলতান আলাউদ্দিন হুসাইন শাহ; টাঙ্গাইল জেলার জায়গির হিসেবে নিয়োগ দেন। তিনি সেখানে ইসলাম প্রচার করতে থাকেন। পরবর্তীতে আফগান নিবাসী কররানী শাসক সোলায়মান কররানীর ;কাছ থেকে জায়গাটি দান হিসেবে পান। দান সূত্রে পাওয়ায় এলাকার নাম অনুসারে মসজিদের নাম হয়েছে ; আতিয়া মসজিদ।

শাহ বাবা আদম কাশ্মীরী (রঃ) বৃদ্ধ বয়সে; তার প্রিয় ও বিশ্বস্ত ভক্ত সাঈদ খান পন্নীকে; মোঘল বাদশাহ আতিয়া এলাকায় দ্বায়িত্ব প্রদান করেন। ১৬০৮ সালে সাঈদ খান পন্নী ; মসজিদটি নির্মাণ শুরু করেন। যার স্থপতি ছিলেন মুহাম্মদ খাঁ।

আরো পড়তে পারেন মোনাকো ধনীদের বস্তি

মসজিদটিতে সুলতানি ও মোঘল আমলের স্থাপত্যকৌশল দেখতে পাওয়া যায়। সুলতানি আমলের নিদর্শন হচ্ছে মিহরাব ও কিবলা। আতিয়া মসজিদের খিলান গুলো চতুর্কেন্দ্রিক। এর মানে হল মসজিদটিতে চারদিক থেকে প্রার্থনা কক্ষে প্রবেশ করা যায়। আর মসজিদের টেরাকোটা ইটের তৈরি। চুন, সুরকি, গাঁথুনি দিয়ে মসজিদ নির্মিত। কারণ সুলতানি আমলে প্লাস্টার পদ্ধতি ছিল না। মসজিদের পূর্ব ও উত্তর দিকের দেওয়ালে ;টেরাকোটার উপর চমৎকার বৃত্তের মাঝে ফুলের নকশা করা ;যা মোঘল আমলের নিদর্শন।

মসজিদের আকার দৈর্ঘ্য ১৮.২৯ মিটার ও প্রস্থ ১২.১৯ মিটার ও দেয়ালের পুরুত্ব ২.২৩ মিটার। মসজিদের চারকোনা অষ্টকোনাকৃতি মিনার রয়েছে। মসজিদটি টেরাকোটায় তৈরি। বাংলাদেশে পাথর পাওয়া সহজলভ্য ; না হওয়ার অধিকাংশ মসজিদগুলো পোড়া মাটি ও ইট দিয়ে তৈরি।

বাংলাদেশের পুরানো দশ টাকার; নোটে আতিয়া মসজিদের ছবি রয়েছে। যার জন্য আতিয়া মসজিদ প্রায় সবার কাছেই পরিচিত।

আমাদের সাথে যুক্ত হতে লাইক দিন নববহ্নি পেজ এ

Check Also

পহেলা বৈশাখ

বাংলা পহেলা বৈশাখ ও বাঙালির চেতনা ও সংষ্কৃতি

বাংলা পহেলা বৈশাখ লোক সমাজের সাথে নাগরিক জীবনের সেতুবন্ধন পহেলা বৈশাখ। ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে জীবনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *