অধ্যবসায় রচনা – বাংলা রচনা

অধ্যবসায় রচনা

“একবার না পারিলে দেখ শতবার”

পহেলা বৈশাখ
পহেলা বৈশাখ
কবি সুফিয়া কামালের উপরোক্ত উক্তিটিই সফলতার মন্ত্র অধ্যবসায়

অধ্যবসায় রচনা

ভূমিকা:

অধ্যবসায় মানে সাফল্য লাভের লক্ষ্যে যেকোনো কিছু করার জন্য বারংবার চেষ্টা করা । কোনো কিছুতে সাফল্যের জন্য প্রয়োজন অক্লান্ত উদ্যম এবং একাগ্রতার সাথে প্রচেষ্টা থাকা । সফল ব্যক্তিরা এটির দিয়ে জীবনে সাফল্য অর্জন করেছেন।

প্রয়োজনীয়তা:

অধ্যবসায় ছাড়া পৃথিবীতে কেউ সাফল্য অর্জন করতে পারে না । তাই পার্থিব জীবনে এটি অপরিহার্য বিষয় । জীবনে এমন কোনো শাখা বা ক্ষেত্র কমই আছে যেখানে এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে নাই । সুন্দর, উপকারী ও উপকারী সব জিনিসই এর দ্বারা অর্জিত হয়েছে । তাই এটি মানব সভ্যতার অগ্রগতির সাফল্যের চাবিকাঠি । পৃথিবীতে মানুষের জীবন পুষ্পসজ্জা নয় । জীবনের প্রতি পদে পদে বিপদ আছে । মানুষ অধ্যবসায়ের মাধ্যমে এসব বাধা ও অসুবিধা অতিক্রম করতে পারে । জীবনে যেমন সাফল্যের প্রয়োজন তেমনি সাফল্যের জন্যও প্রয়োজন অধ্যবসায়।

ছাত্রজীবনে :

ছাত্রজীবনে অধ্যবসায়ের গুরুত্ব অনেক বেশি। একজন অলস ও অমনোযোগী ছাত্র শিক্ষা অর্জন করতে পারে না। এমনকি একজন সাধারণ ছাত্রও এটির জোরে একজন অমনোযোগী মেধাবী ছাত্রের চেয়ে ভালো শিক্ষা অর্জন করতে পারে । ” ভবিষ্যতের জন্য কিছু ত্যাগ করবেন না তবে আবার চেষ্টা করুন।” যদি একজন ছাত্র একবারে একটি প্রবন্ধ মুখস্ত করতে ব্যর্থ হয়, তবে তাকে নার্ভাস বা হতাশ না হয়ে এটি মুখস্ত করার জন্য বারবার পড়তে হবে।

অধ্যবসায় রচনা

অধ্যবসায় রচনা
অধ্যবসায় রচনা

একজন কৃষকের ক্ষেত্রে:

একজন কৃষক ফসল উৎপাদনে সফলতা অর্জন করতে পারে যাতে সে ব্যর্থ না হয়। অধ্যবসায় একটি কঠোর পরিশ্রম সহ্য করার ইঙ্গিত দেয় না। এটি নিয়মিততার সাথে একটি নিয়ম হিসাবে একটি কাজের জন্য চেষ্টা করার জন্য একজন মানুষকে উদ্দীপিত করে। ……………… অধ্যবসায় রচনা

জাতীয় জীবনে:

জাতীয় জীবনে অধ্যবসায়ের কোনো বিকল্প বা বিকল্প নেই। এটি জাতীয় জীবনে যেমন ব্যক্তিজীবনের জন্য প্রয়োজনীয়। এর প্রয়োজনীয়তা কোনো অবস্থাতেই উপেক্ষা করা যাবে না। একটি জাতির নাগরিকদের অবশ্যই সক্রিয়, পরিশ্রমী, কঠোর পরিশ্রমী, শ্রমসাধ্য এবং নিজের এবং জাতির মঙ্গলের জন্য নিয়মিত কাজ করতে হবে। দেশের উন্নতির জন্য নাগরিকদের অত্যন্ত ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য উদ্যমী, উত্সাহী এবং উদ্দীপক হতে হবে।

অধ্যবসায় রচনা – বাংলা রচনা

অধ্যবসায় এবং যোগ্যতা:

যোগ্যতা এবং অধ্যবসায় এক জিনিস নয়। এই দুটি জিনিস দুটি ভিন্ন বিচারকের মধ্যে পাওয়া যায়। অনেক সময়, এই দুটি জিনিস পারস্পরিকভাবে সম্পর্কিত। অধ্যবসায় ছাড়া মেধা সাফল্যের ক্ষেত্রে সামান্য কিছু করতে পারে না। কিন্তু যোগ্যতা ছাড়া অধ্যবসায় অনেক কিছু করতে পারে।

নিউটন, মহান বিজ্ঞানী মন্তব্য করেছেন যে, ” যোগ্যতা বলে কোনো কথা নেই। এটি নিয়মিত শ্রম এবং অধ্যবসায় দিয়ে অতিক্রম করা বা অতিক্রম করা যেতে পারে।” একটি পরিকল্পনা করা যেতে পারে, মস্তিষ্ককে কাজে লাগিয়ে একটি প্রোফাইল তৈরি করা যেতে পারে কিন্তু পরিকল্পনা এবং প্রোফাইলটি আর কোনো চেষ্টা ছাড়া বাস্তবায়িত বা বাস্তবায়ন করা যায় না।
সুতরাং জানা গেল যে, যোগ্যতা বিমূর্ত এবং ত ব্যবহারিক। তাই যেকোনো কিছু করার জন্য ঘন ঘন অনুশীলন সফলতা বা ইতিবাচক ফলাফল নিয়ে আসে।

আরও পড়ুনঃ স্বদেশ প্রেম রচনা ও দেশপ্রেম রচনা (বাংলাদেশ); বাংলা রচনা

অধ্যবসায়ের মানুষ:

জীবন সংগ্রামে সাফল্যের জনক হল অধ্যবসায় । একটি উদাহরণ এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে – রাজা রবার্ট ব্রুস যুদ্ধে প্রায় কয়েকবার পরাজিত হন। কিন্তু তিনি পিছিয়ে পড়েননি বা আশা-আকাঙ্খা ত্যাগ করেননি। তিনি মনোবল হারাননি। তিনি বারবার উন্মত্ত প্রচেষ্টা করেছিলেন এবং ছাদে আরোহণের ক্ষেত্রে মাকড়সার উদাহরণ অনুসরণ করে তিনি উদ্দীপ্ত হয়েছিলেন এবং অদম্য দৃঢ় সংকল্প এবং সাহসের সাথে লড়াই করেছিলেন। মাত্র সপ্তমবার তিনি সফল হন।


…………অধ্যবসায় রচনা…… বাংলা রচনা …………
নেপোলিয়ন অধ্যবসায়ের একটি চমৎকার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিলেন। বিশ্বকবি রবী্নদ্রনাথ ঠাকুর, বিদ্রহী কবি নজরুল ইসলাম, জননেতা এ.কে. ফজলুল হক, এবং বিজ্ঞানী স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু অধ্যবসায়ের গুণে জাতীয় ও ব্যক্তি উভয় জীবনেই সফল হন।

বারংবার চেষ্টা ছাড়া:

অধ্যবসায় ছাড়া কোনো মহৎ কাজ করা যায় না। অধ্যবসায়হীন মানুষ যেকোনো কাজে সফল হতে পারে। তার সর্বনাশ বা বিনাশ অপরিহার্য হয়ে পড়ে। ইতিহাস তার নাম বহন করে না। জীবদ্দশায় বা মৃত্যুতেও তাকে কেউ স্মরণ করে না।

উপসংহার:

অধ্যবসায় সাফল্য এনে দেয় এবং অধ্যবসায়ী একজন মানুষকে চিরস্মরণীয় করে তোলে। একটি প্রবাদ আছে, “যারা নিজেদের সাহায্য করে ঈশ্বর তাদের সাহায্য করেন।” এটি একটি মহৎ গুণ যা একজন মানুষকে সাফল্যের দিকে নিয়ে যায়। তাই আমাদের সকলের উচিত অধ্যবসায়ের পুরুষ হওয়া।

…………… অধ্যবসায় রচনা

আমাদের সাথে যুক্ত থাকতে লাইক দিন নব বহ্নি

Check Also

বৃষ্টি নিয়ে কবিতা

বৃষ্টি নিয়ে কবিতা। জীবন নিয়ে কবিতা

বৃষ্টি নিয়ে কবিতা ০১ কবিতা লিখেছেন: আতিক সিয়াম একটু বৃষ্টির প্রার্থনায় তপ্ত দুপুর ঘামে ভেজা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *